1. admin@bd-journalist.com : বিডি জার্নালিস্ট : বিডি জার্নালিস্ট
  2. miraj20@gmail.com : নিজস্ব প্রতিবেদক : নিজস্ব প্রতিবেদক
  3. commercial.rased@gmail.com : Staff Reporter : Staff Reporter
  4. newuser@mail.com : Staff Reporter : Staff Reporter
বৃহস্পতিবার, ১৫ এপ্রিল ২০২১, ০১:০৫ অপরাহ্ন

মহা আর্থিক সংকটকে মালিকানাধীন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পরিচালকরা

বিডি জার্নালিস্ট ডেস্ক :
  • আপডেট সময় শুক্রবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০২০

গত ৮ই মার্চ ২০২০ সালে দেশে প্রথম করোনা ভাইরাস সনাক্ত হলে উক্ত মাসের ১৬ই মার্চ থেকেই শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা জন্যই দেশের সকলস্তরের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শিক্ষা মন্ত্রণালয় জরুরি ছুটি ঘোষণা করে। সংক্রমণ ধীরে ধীরে বাড়তে থাকায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি বাড়তে থাকে ইতিমধ্যেই দশমাস পূর্ণ হয়েছে। অন্য সকল প্রতিষ্ঠান ইতিমধ্যেই স্বাভাবিক পক্রিয়ায় চললেও চলছে না কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।অন‍্যদিকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা ও বন্ধ নিয়ে অভিভাবক মহলে রয়েছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া।এমন সংকটকে সবচেয়ে বেশি আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন প্রাইভেট প্রতিষ্ঠানের পরিচালকরা
বিশেষ করে কিন্টারগার্ডেন পরিচালকরা।এই ধরনের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো একমাত্র আয়ের উৎস হলো শিক্ষার্থীদের টিউশন ফি এ দিয়েই চালাতে হয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সকল খরচ। স্কুল দীর্ঘদিন বন্ধ থাকা ও অভিভাবকদের আর্থিক সংকট এই দুটো কারণে অধিকাংশ অভিভাবক দিচ্ছেন না তাদের সন্তানদের টিউশন ফি অন‍্যদিকে পরিচালকরা শিক্ষকদের বেতন ভাতা দিতে পারচ্ছেন না অধিকাংশ শিক্ষা
প্রতিষ্ঠান। সবচেয়ে বড় সমস্যা হলো প্রতিষ্ঠানের বিল্ডিং ভাড়া তারা কোনোভাবেই পরিশোধ করতে পারচ্ছেন না। এমন অবস্থায় বাড়ির মালিক এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পরিচালকদের মধ্যে বিবেচনার সমন্বয় না হলে অনেক কিন্টারগার্ডেন বিলুপ্তির সম্ভবনা রয়েছে। এ ব‍্যাপারে সরকারি কোন নীতিমালা আসলে ক্ষুদ্র শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পরিচালকদের জন্য এই সময়ের শক্তিশালী কান্ডারী বলে মনে করেছন সচেতন সমাজ।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2021 bd-journalist.com
Theme Customized By newspadma.Com