1. admin@bd-journalist.com : বিডি জার্নালিস্ট : বিডি জার্নালিস্ট
  2. miraj20@gmail.com : নিজস্ব প্রতিবেদক : নিজস্ব প্রতিবেদক
  3. commercial.rased@gmail.com : Staff Reporter : Staff Reporter
  4. Bangladeshkonthosor@gmail.com : অনলাইন ডেক্স : অনলাইন ডেক্স
  5. newuser@mail.com : Staff Reporter : Staff Reporter
সোমবার, ১১ অক্টোবর ২০২১, ০৭:০৫ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
পালিয়ে যায় হাসপাতালের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা নোয়াখালীতে চিকিৎসা না দেওয়ায় রোগির মৃত্যুর অভিযোগ ভ্রমন নিষেধাজ্ঞা তুলে নিলো ওমান রামপালের খাঁনজাহান আলী বিমান বন্দরের নির্মাণ কাজ পরিদর্শন র্দীঘ ৫০ বছরের সফলতার গল্প শোনালেন রুহুল আমিন গাজীপুরের টঙ্গীতে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে দুই জন ডাকাত গ্রেফতার শেষ হলো পদ্মা সেতুর রোডওয়ে স্লাব বসানোর কাজ বরিশালের ইউএনও ওসি সহ ১১৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা,খতিয়ে দেখবে পিবিআই ফজলুল হক বাবুর জন্মদিনে জানালো ১৫ বছর আগের কঠিন সিদ্ধান্তের কথা টঙ্গীতে শোক দিবস উপলক্ষে আলােচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত চার দিন পরে মধুমতি নদীতে নিখোঁজ শ্রমিকের মরদেহ উদ্ধার

ফুলবাড়ীতে নতুন বই পায়নি বিলুপ্ত ছিটমহল দাসিয়ারছড়ার শেখ ফজিলাতুন্নেছা দাখিল মাদ্রাসা

বিডি জার্নালিস্ট ডেস্ক :
  • আপডেট সময় শনিবার, ২ জানুয়ারি, ২০২১

১লা জানুয়ারী সারা দেশে সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে একযোগে সরকারি বই বিতরণ করা হয়েছে। কিন্তু নতুন বই পায়নি কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলার বিলুপ্ত ছিটমহল দাসিয়ারছড়ায় একমাত্র জাতীয়করণকৃত প্রতিষ্ঠান শেখ ফজিলাতুন্নেছা দাখিল মাদ্রাসার তিন শতাধিক শিক্ষার্থী।
সরকারি নিদের্শনা উপেক্ষা করে মাদ্রাসার সহ-সুপার শাহানুর আলমের নেতৃত্বে কয়েকজন শিক্ষক শিক্ষার্থীদের বাড়ী বাড়ী গিয়ে শিক্ষার্থীদের পুরাতন বই ফেরত নিয়েছেন। বইগুলো সংগ্রহ করে জনৈক আব্দুল খালেকের বাড়ীতে জমা করেন।
এ দিকে শিক্ষার্থীরা নতুন বই নিতে এসে খালি হাতে বাড়ীতে ফিরে যায়। এ ঘটনায় অভিভাবক ও শিক্ষার্থীর মাঝে ক্ষোভ বিরাজ করছে।
শনিবার সকালে ওই প্রতিষ্ঠানে গিয়ে দেখা গেছে নতুন বই নেওয়ার জন্য বিভিন্ন শ্রেণির অনেক শিক্ষার্থীরা অপেক্ষা করছে।
অষ্টম শ্রেণীর শিক্ষার্থী শিরিনা খাতুন ও সোহাগ মিয়া জানায়, এরশাদুল স্যার নতুন বই দেওয়ার কথা বলে পুরাতন বই গুলো নিয়ে এসেছেন। এখনো নতুন বই পাইনি।
অভিভাবক মোফাজ্জল হোসেন জানান, গতকাল আমার মেয়ে বই নিতে এসে খালি হাতে ফিরে যায়। বাড়ি ফিরে নতুন বইয়ের জন্য কান্নাকাটি করছিল।
এ বিষয়ে প্রতিষ্ঠানের এক গ্রæপের সহ-সুপার দাবীদার শাহানুর আলমের মুঠোফেনে একাধিকবার যোগাযোগ করলেও কোন সারা পাওয়া যায়নি।
অন্য অংশের সুপারিনটেনডেন্ট দাবীদার আমিনুল ইসলাম এ প্রসঙ্গে জানান,শিক্ষার্থীদের নতুন বইয়ের চাহিদা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসে জমা দেওয়া হয়েছে। কিন্তু বই পাওয়া যায়নি।
এ প্রসঙ্গে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আব্দুল হাই জানান, ওই প্রতিষ্ঠানে দুই ব্যক্তি সুপারিনটেনডেন্ট পদের দাবীদার। এ কারণে প্রকৃত সুপারিনটেনডেন্ট কে তার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র আগামী ৭ জানুয়ারীর মধ্যে দাখিল করতে বলা হয়েছে। না হলে আমি নিজেই গিয়ে শিক্ষার্থীদের মাঝে বই বিতরণ করবো।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2021 bd-journalist.com
Theme Customized By newspadma.Com