1. admin@bd-journalist.com : বিডি জার্নালিস্ট : বিডি জার্নালিস্ট
  2. miraj20@gmail.com : নিজস্ব প্রতিবেদক : নিজস্ব প্রতিবেদক
  3. commercial.rased@gmail.com : Staff Reporter : Staff Reporter
  4. Bangladeshkonthosor@gmail.com : অনলাইন ডেক্স : অনলাইন ডেক্স
  5. newuser@mail.com : Staff Reporter : Staff Reporter
মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২২, ০৩:০০ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
পালিয়ে যায় হাসপাতালের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা নোয়াখালীতে চিকিৎসা না দেওয়ায় রোগির মৃত্যুর অভিযোগ ভ্রমন নিষেধাজ্ঞা তুলে নিলো ওমান রামপালের খাঁনজাহান আলী বিমান বন্দরের নির্মাণ কাজ পরিদর্শন র্দীঘ ৫০ বছরের সফলতার গল্প শোনালেন রুহুল আমিন গাজীপুরের টঙ্গীতে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে দুই জন ডাকাত গ্রেফতার শেষ হলো পদ্মা সেতুর রোডওয়ে স্লাব বসানোর কাজ বরিশালের ইউএনও ওসি সহ ১১৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা,খতিয়ে দেখবে পিবিআই ফজলুল হক বাবুর জন্মদিনে জানালো ১৫ বছর আগের কঠিন সিদ্ধান্তের কথা টঙ্গীতে শোক দিবস উপলক্ষে আলােচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত চার দিন পরে মধুমতি নদীতে নিখোঁজ শ্রমিকের মরদেহ উদ্ধার

চোর পালালে বুদ্ধি বাড়ে কথাটির বাস্তবে রূপ নিল উগান্ডায়

বার্তা ডেস্ক
  • আপডেট সময় শনিবার, ২১ আগস্ট, ২০২১

উগান্ডায় গরুচোর ঠেকাতে নতুন পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। দেশটির উত্তরাঞ্চলের মোরোতো জেলায় কেউ চাইলেই দোকান বা ফুটপাত থেকে পাঁচটি বা তার বেশি রুটি বা রুটিজাতীয় আরেক খাবার চাপাতি কিনতে পারছেন না।

পুলিশ ধারণা করছে, বাড়তি এ খাবার খাওয়ানো হচ্ছে চোরদের। এ কারণে কেউ পাঁচটির বেশি চাপাতি কিনলেই আটক করছে পুলিশ। উগান্ডা রেডিও নেটওয়ার্কের (ইউআরএন) বরাত দিয়ে ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসি এ খবর প্রকাশ করেছে।

মোরোতো জেলা উগান্ডার কারামোজা অঞ্চলভুক্ত। এ অঞ্চলের পুলিশের মুখপাত্র মাইকেল লংগোল বলেন, ‘আমাদের কাছে তথ্য এসেছে, যাঁরা বেশি চাপাতি কিনছেন, তাঁরা জঙ্গলে লুকিয়ে থাকা অস্ত্রধারীদের কাছে নিয়ে যাচ্ছেন।’ তিনি আরও বলেন, গবাদিপশু চুরির সঙ্গে যুক্ত এসব লোকের খাবার সরবরাহ বন্ধ করে দিলে তারা বেরিয়ে আসবে এবং এবং তাদের কাছে থাকা অস্ত্র নিরাপত্তা বাহিনীর কাছে জমা দিতে বাধ্য হবে।

তবে এর সঙ্গে দ্বিমত পোষণ করেছেন স্থানীয় শান্তিকর্মী মার্ক কোরিয়াং। তিনি বলেন, পুলিশের এ ধরনের উদ্যোগ কাজে আসবে না। এসব অস্ত্রধারী চাপাতি না খেয়েও টিকে থাকতে সক্ষম হবে। স্থানীয় আরেক বাসিন্দা ইউআরএনকে বলেছেন, নিরাপত্তাহীনতা দূর করতে নিরাপত্তা কর্মকর্তাদের স্থানীয় লোকজনের সঙ্গে কাজ করা প্রয়োজন।

উগান্ডায় নিরস্ত্রীকরণ কর্মসূচি পরিচালনা করছে সেনাবাহিনী। সেনা ইউনিটের মুখপাত্র এড্রিন মাওয়ান্ডা বলেন, গত ১৭ জুলাই থেকে নিরস্ত্রীকরণ মহড়া শুরু হওয়ার পর থেকে পুরো অঞ্চলে ৫৮টি বন্দুক উদ্ধার করা হয়েছে।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2021 bd-journalist.com
Theme Customized By newspadma.Com